পাবলিক ফিগার

পাবলিক ফিগার

November 10, 2020, 1:35 am

Updated: November 16, 2020, 5:17 pm

একটি বিভ্রান্তিকর পোস্ট ট্রাম্পের টুইট পর্যন্ত পৌঁছালো যেভাবে

Author: BD FactCheck Published: November 10, 2020, 1:35 am | Updated: November 16, 2020, 5:17 pm

গত ৩ নভেম্বর ভোট জালিয়াতির দাবী করে একটি পোস্ট ভুলভাবে সামাজিক মাধ্যমে ছড়ানো হয়। কয়েক ঘন্টার মধ্যে পোস্টটি ভাইরাল হয়ে যায় এবং স্বয়ং ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার ওয়াল পর্যন্ত পৌছে যায়।

যেভাবে ঘটনাটি ঘটে:

মিশিগান ভোটিং ম্যাপ:

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্য মিশিগানের একটি ভুল ভোটিং ম্যাপ থেকে দেখা যায় একটি নির্দিষ্ট সময়ে প্রার্থী জো বাইডেন ১ লক্ষ ৩৮ হাজার ভোট পেয়েছেন যেখানে এই সময়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প কোন ভোট পান নি।

এই স্ক্রীণশটটি আসল ছিল, কিন্তু সেটাতে তথ্য ভুল ছিল। সহজ কথায় এটা ছিল ডেটা এন্ট্রি সংক্রান্ত ত্রুটি।

যারা স্ক্রীণশটটি পোস্ট করেছে সেই নির্বাচনী ডেটা কোস্পানী ডিসিশন ডেস্ক বলছে, ”এটি একটি ফাইলের ত্রুটি ছিল। মিশিগান কর্তৃপক্ষের এই ত্রুটিটি নজরে এসেছে এবং তারা তথ্যটি আপডেট করেছে।” 

যদিও ত্রুটিটি সংশোধন করা হয়েছিল, কিন্তু ইতোমধ্যেই তোলা ভিত্তিহীন জাল ভোটের অভিযোগের পালে হাওয়া দেয় এই স্ক্রীণশটটি। 

যেভাবে ভাইরাল হয়:

নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ এনে সেটার পক্ষে স্ক্রীণশটটি ব্যবহার করেছে এরকম প্রাথমিক উৎস হিসেবে বিবিসি 8kun নামক একটি মেসেজ বোর্ডের সন্ধান পায়। ৪ নভেম্বর বুধবার গ্রীনিচ টাইম ১০:৩৭ এ পোস্টটি করা হয়।

8kun হলো উগ্র ভাষা ও দৃষ্টিভঙ্গি, সহিংস ও সেক্সুয়াল বিষয়বস্তুতে পরিপূর্ণ একটি মেসেজ বোর্ড। এর সাথে জড়িতরা উগ্র ডানপন্থী কর্মী এবং এরা QAnon ষড়যন্ত্র তত্ত্বে বিশ্বাসী। এই তত্ত্বটির মূলকথা হচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্প এলিট পেডোফাইলদের বিরুদ্ধে পরোক্ষ যুদ্ধে নেমেছেন।

আধা ঘন্টার মধ্যে অর্থাৎ গ্রীনিচ টাইম ১০:৫৬ এর দিকে ছবিটি টুইটারে চলে আসে। উগ্র ডানপন্থী একটি প্রোফাইল থেকে ছবিটি মিম আকারে পোস্ট করা হয়। পোস্টটিতে ডেটা এন্ট্রি সংক্রান্ত ত্রুটিকে এড়িয়ে ভোট জালিয়াতির ইঙ্গিত দেয়া হয়। 

অল্প সময়ের মধ্যেই ছবিটি বিভিন্ন প্রোফাইল থেকে শেয়ার হয়। একই সময় তা ‘পার্লার’ সহ অন্যান্য উগ্র ডানপন্থী প্ল্যাটফর্ম থেকেও ছড়ানো হয়।

গ্রীনিচ টাইম ২ টার পর রক্ষণশীল ম্যাট ম্যাকোইয়াক এর টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে তা পোস্ট করা হয় যার টুইটার ফলোয়ার সংখ্যা ৩৬ হাজারের মতো। যদিও তিনি পরে পোস্টটি সরিয়ে নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন।

সেসময়ই পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার পথে চলে যায়। আরেক রক্ষণশীল লেখক ম্যাট ওয়ালশ তার ৫ লক্ষ ফলোয়ার সমৃদ্ধ টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ম্যাকোয়াইকের পোস্টটি রিটুইট করেন।

বুধবার গ্রীনিচ টাইম ৩:৩৫ ডোনাল্ড ট্রাম্প ম্যাট ওয়ালশের টুইটটি ‘এসব কি?’ লিখে রিটুইট করেন।

ভুয়া তথ্য ও সামাজিক মাধ্যমে ম্যানিপুলেশন নিয়ে কাজ করেন এমন একজন হলেন সিন্ডি ওটিস। তিনি জানান ভুঁইফোড় সূত্র থেকে কোন কন্টেন্ট পোস্ট হয়ে হাই প্রোফাইল অ্যাকাউন্ট থেকে ছড়ানোর ঘটনা এটি প্রথম নয়। 8kun এর মতো উগ্র প্ল্যাটফর্মের ভুয়া তথ্য ও ষড়যন্ত্র তত্ত্ব কিভাবে সামাজিক মাধ্যমে স্বয়ং মার্কিন রাষ্ট্রপতির অ্যাকাউন্ট পর্য্ন্ত পৌছে যায় তার অন্যতম দৃষ্টান্ত এটি।

তিনি মনে করেন, নির্বাচনী প্রক্রিয়া ও ভোট গণনা পদ্ধতি নিয়ে যথাযথ জ্ঞান না থাকার কারণে সামাজিক মাধ্যমে এরকম ভুয়া তথ্য ছড়ানো সহজ হয়।

বিভিন্ন বৃহৎ সংবাদ মাধ্যম ও ফ্যাক্টচেকার স্ক্রীণশটটির ত্রুটি উল্লেখ করে প্রতিবেদন করার পরও তা অনলাইনে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ছড়াতে থাকে।টুইটার যদিও এই স্ক্রীণশট সংক্রান্ত পোস্টে সতর্কতা লেবেল সংযুক্ত করেছে তারপরও ফেসবুক টুইটার মিলিয়ে হাজারে হাজারে পোস্টটি শেয়ার হয়েছে। জার্মান, স্প্যানিশ, পর্তুগিজ ও রাশিয়ান সহ বিভিন্ন ভাষায় তা ইনস্টাগ্রাম ও রেডিটেও শেয়ার হয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *