ফেসবুক গুজব

অসত্য

ফেসবুক গুজব

December 20, 2020, 4:29 pm

Updated: December 20, 2020, 4:29 pm

আলাবামায় ‌’ভ্যাকসিন নেয়ার পর নার্সের মৃত্যু’র ভুয়া খবর ভাইরাল

Author: Qadaruddin Shishir Published: December 20, 2020, 4:29 pm | Updated: December 20, 2020, 4:29 pm

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিয়ে অনলাইনে ভুয়া তথ্যের প্রসার বাড়ছেই। ভ্যাকসিনের উপাদান থেকে শুরু করে এর সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সবকিছু নিয়েই অসত্য দাবি ছড়ানো হচ্ছে।

গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামায় চিকিৎসাকর্মীদের মধ্যে কোভিড ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরুর পর স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা এরকম একটি ভুয়া দাবি খণ্ডন করেছেন। সামাজিক মাধ্যমে ছড়ানো খবরে দাবি করা হয় যে, ভ্যাকসিন নেয়ার পর এক নার্স মারা গেছেন। এই দাবিটি প্রকৃতপক্ষে অসত্য।

আলাবামা জনস্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন যে, রাজ্যটিতে গত মঙ্গলবার ভ্যাকসিন দেয়া শুরুর পর কোন নার্স মারা যাননি।

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা মূলত একটি ক্ষুদে বার্তার স্ক্রীনশট শেয়ার করেছেন যেখানে লেখা- ‘ও মাই গড! এই মাত্র আমার আন্টি মারা গেলেন!’ সাথে শেয়ারকারীরা উল্লেখ করেছেন যে মৃতের পরিবার চান না তার পরিচয় প্রকাশ করা হোক।

সামাজিক মাধ্যমের পোস্টগুলো মূলত সেসব অ্যাকাউন্ট থেকেই শেয়ার হয়েছে যেগুলো থেকে ভ্যাকসিন বিরোধী প্রচারণা চালানো হয়ে থাকে।

একটি ফেসবুক পোস্টে লেখা হয়েছে- “দেখেন শুরু হয়ে গেছে। ভ্যাকসিন নেয়ার ৮-১০ ঘন্টা পর আলাবামায় ৪২ বছর বয়সী এক নার্সের মৃত্যু হয়েছে।”

বার্তা সংস্থা এপি আলাবামার জনস্বাস্থ্য বিভাগের সাথে যোগাযোগ করলে তারা যেসব হাসপাতাল ভ্যাকসিন প্রয়োগের কাজে নিযুক্ত সেগুলোতে যোগাযোগ করেছেন এবং নিশ্চিত করেছেন যে, নার্সের মৃত্যুর খবরটি সত্য নয়। স্বাস্থ্য বিভাগ এই ভুয়া দাবির বিপরীতে সামাজিক মাধ্যমে একটি বিবৃতিও দিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, “পোস্টগুলো সত্য নয়। আলাবামায় কোভিড ভ্যাকসিন নেয়া কেউ মৃত্যুবরণ করেননি।”

অনলাইনে ছড়ানো পোস্টে দাবি করা হয়, অ্যানাফিলাক্সিস নামক এক ধরণের তীব্র অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়ায় সেই নার্স মারা গেছেন।

ইংল্যান্ডে দুই চিকিৎসা কর্মীর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যাওয়ার পর যাদের অ্যালার্জিজনিত সমস্যা আছে তাদেরকে ভ্যাকসিন নিতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। যদিও সেই দুই কর্মী এখন পুরোপুরি সূস্থ।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন গত শুক্রবার ফাইজারের ভ্যাকসিনের জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। ফাইজার তাদের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে তীব্র কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পায়নি বলে জানিয়েছে।

সূত্র: এপি


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *