স্টাফ

আলমগীর হোসাইন

ডিরেক্টর-১

আলমগীর হোসাইন বিডি ফ্যাক্টচেক-এর একজন ডিরেক্টর। তিনি নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল টাইম টেলিভিশনের জৈষ্ঠ্য প্রতিবেদক। এর আগে তিনি বাংলাদেশ বেতারে স্পোর্টস কমেন্টেটর হিসেবে দায়িত্ব করেন। এরই অংশ হিসেবে বিভিন্ন দেশের ভ্রমণ করেন। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক শহরে বসবাস করছেন।

কদরুদ্দীন শিশির

ডিরেক্টর-২

ইকবাল মাহমুদ রানা

ডিরেক্টর-৩

ইকবাল মাহমুদ রানা বিডি ফ্যাক্টচেক-এর একজন ডিরেক্টর। এছাড়া তিনি ইংরেজি ভাষার দৈনিক নিউ এজ-এর স্টাফ রিপোর্টার। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে অনার্স ও মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।

জাহেদ আরমান

প্রতিষ্ঠাতা এবং সম্পাদক

জাহেদ আরমান বিডি ফ্যাক্টচেক-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সম্পাদক। তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত গেটওয়ে জার্নালিজম রিভিউ-এর ম্যানেজিং এডিটর হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন। ফ্যাক্টচেকিং তাঁর আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু । জনাব আরমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স এবং যুক্তরাষ্ট্রের এডিনবরো ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া থেকে কমিউনিকেশন্স স্টাডিজ বিষয়ে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন। বর্তমানে সাউদার্ন ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডিতে অধ্যয়ন করছেন।

মাহবুব রনি

ম্যনেজিং এডিটর

মো. মাহবুবুর রহমান (মাহবুব রনি) বিডি ফ্যাক্টচেক-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং ম্যানেজিং এডিটর। আন্ডারগ্রাজুয়েট থেকে তিনি সাংবাদিকতা শুরু করেন। বর্তমানে শিক্ষা বিষয়ক দৈনিক দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। একই সাথে দৈনিক ইত্তেফাকের স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কাজ করছেন। ক্যাম্পাস রিপোর্টিং করার সময় তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন।

সালাহউদ্দীন সোহাগ

গবেষক
সালাহউদ্দীন সোহাগ ঢাকা বিশ্বিবদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট অনার্স, মাস্টার্স ও এম. ফিল. সম্পন্ন করেছেন।

নুরুস সাফা

সোশ্যাল মিডিয়া এডিটর

নুরুস সাফা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে অনার্স এবং মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। তিনি সেন্ট্রাল চাইনা নরমাল ইউনিভার্সিটি থেকে সাংবাদিকতার উপর মাস্টার্স করেছেন। বর্তমানে সাংহাই জিয়াও টং ইউনিভার্সিটিতে নিউ মিডিয়া এবং কমিউনিকেশন্স এর উপর পিএইচডি করছেন।


ফ্যাক্ট যাচাই করুন
  • প্রশ্ন : ফেসবুকে দেখলাম “ইস! কৌশলটা আগে জানা থাকলে বাবা স্ট্রোক করে মারা যেতেন না” শিরোনামের একটি নিউজ সবাই শেয়ার দিচ্ছে। স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তির জীবন বাচাঁতে রক্তক্ষয় পদ্ধতি কি আদৌ কার্যকরী?

    উত্তর : স্ট্রোকে আক্রান্তু ব্যক্তির আঙ্গুল কেটে রক্তক্ষয় করানোর ফলে রোগী ভালো হয়ে যান বলে যে সংবাদ বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে বিডি ফ্যাক্টচেক- এর অনুসন্ধানে তার সত্যতা পাওয়া যায়নি।

    বিস্তারিত…