নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব: সংবাদটি অসত্য

24 November, 2018 21:11 PM আওয়ামী লীগ

জাহেদ আরমান:

নোবেল শান্তি পুরস্কারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব নিয়ে আবারও ভুয়া সংবাদ ছড়াচ্ছে কিছু অনলাইন সংবাদ মাধ্যম। এসব সংবাদে দাবি করা হচ্ছে, ২০১৯ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য বিশেষজ্ঞ প্যানেলের অন্তত চারজন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করেছে। তিনজন এই পুরস্কার যৌথভাবে শেখ হাসিনা ও জার্মানীর চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলকে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন। বিডি ফ্যাক্টচেক-এর পক্ষ থেকে ওই বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা এইধরণের সংবাদের সত্যতা নাকচ করেন।

“শান্তিতে নোবেল যৌথভাবে শেখ হাসিনা-মেরকেল” শিরোনামের সংবাদটি চট্টলার সংবাদ সংবাদ মাধ্যম প্রকাশ করেছে ১৭ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে। সংবাদটি এর আগেও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করেছিল। এই সংবাদে বলা হয়,

নোবেল শান্তি পুরস্কার ২০১৯, শেখ হাসিনা এবং অ্যাঙ্গেলা মেরকেলকে যৌথভাবে দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন একাধিক শিক্ষাবিদ এবং নোবেল জয়ী। এরা সবাই বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সদস্য। আগামী বছরের জানুয়ারির মধ্যে বিশেষজ্ঞ প্যানেলের মতামত চেয়েছে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য গঠিত কমিটি। বিশেষজ্ঞ প্যানেলের চারজন শেখ হাসিনার পক্ষে মত দিয়েছেন। তিনজন এই পুরস্কার যৌথভাবে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন।

সংবাদটির নিচে অন্তত শতাধিক পাঠক কমেন্টে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান।

পাঠকের কমেন্ট

স্ক্রিনশট: সংবাদের নিচে প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে পাঠকের কমেন্ট

 

এছাড়া সংবাদটি ফেসবুকেও শেয়ার হচ্ছে বিভিন্নভাবে।

সংবাদটি শেয়ার হচ্ছে ফেসবুকে

স্ক্রিনশট: ফেসবুকে শেয়ার হচ্ছে ভুয়া সংবাদ।

 

এই সংবাদে তিনজনের নাম ব্যবহার করা হয়। এরা হলেন, ইউরোপীয় পিস অ্যান্ড রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশনের (EUPRA) ড্যানিয়েল ইরিরা, ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর নন ভায়োলেন্ট কনফ্লিক্ট (ICNCC) এর মেরি এলিজাবেথ কিং এবং ইউনিভার্সিটি অব অসলোর রেক্টর সেভিন স্টোলেন। এদের মধ্যে ড্যানিয়েল ইরিরা ও সেভিন স্টোলেন এর সঙ্গে যোগাযোগ করে বিডি ফ্যাক্টচেক

ইউরোপীয় পিস অ্যান্ড রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশনের (EUPRA) ড্যানিয়েলা ইরিরার সঙ্গে ইমেইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমি উদ্বিগ্ন যে এটা একটা ভুয়া তথ্য। আমি কখনো এই ধরণের নাম প্রস্তাব করিনি। অন্য কারও জন্যও করিনি।”

ড্যানিয়েল ইরিরার ইমেইল উত্তর

স্ক্রিনশট: ড্যানিয়েল ইরিরার ইমেইল উত্তর।

ইউনিভার্সিটি অব অসলোর রেক্টর সেভিন স্টোলেনের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “আমি এসংক্রান্ত কোনো কিছু জানি না। আর আমি নোবেল বিষয়ক কোনো প্যানেলের সাথে নেই।”

অন্যদিকে ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর নন ভায়োলেন্ট কনফ্লিক্ট (ICNCC) এ মেরি এলিজাবেথ কিং নামে কারো অস্তিত্ত্ব পাওয়া যায়নি।

নোবেল কমিটির বক্তব্য:

নোবেল পুরস্কার প্রদানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট তাদের সাইটে স্পষ্ট উল্লেখ করেছে, তারা নোবেল পুরস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকায় স্থানপ্রাপ্তদের নামের তালিকা প্রকাশ করে না পঞ্চাশ বছর পর্যন্ত। এমনকি যারা এই তালিকায় স্থান পায় তাদেরকেও জানানো হয় না। শুধু নোবেল পুরস্কার যিনি পান তাকে জানানো হয়। আর এই নিয়মের ব্যতিক্রম হয়নি কখনও। আর এইবার যদি ব্যতিক্রম হতো সেটি নিসন্দেহে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের নজরে আসতো।

উল্লেখ্য, এর আগেও “নোবেল শান্তির সংক্ষিপ্ত তালিকায় শেথ হাসিনা” শিরোনামে সংবাদ ভাইরাল হয়েছিলো মূলধারার গণমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তখন বিডি ফ্যাক্টচেক ওই সংবাদের ফ্যাক্টচেক করে তা ভুয়া সংবাদ বলে নিশ্চিত করেছিল।

পড়ুন বিডি ফ্যাক্টচেক-এ:  শেখ হাসিনা কি নোবেল শান্তির সংক্ষিপ্ত তালিকায় আছেন?

Related Post