আসছে নির্বাচন: ভারতে ভুয়া খবর ঠেকাতে হোয়াটসঅ্যাপের টিভি বিজ্ঞাপন

03 December, 2018 12:12 PM অন্যান্য

ফ্যাক্টচেক ডেস্ক:

আগামী বছরের শুরুতে জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ভারতে ভুয়া খবর ছড়ানো ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে খুদেবার্তা অনলাইনে বার্তা আদানপ্রদানের অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপ। ফেসবুকের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে রেডিওতে সতর্কতামূলক বিজ্ঞাপন প্রচার করেছিল গত কয়েক মাস ধরে।

এবার ভুয়া খবর নিয়ে সতর্কতামূলক ক্যাম্পেইন আরও বিস্তৃত করার উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। খুবই শিগগিরই ভারতের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে এবং পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রচার করা হবে।

হিন্দুস্তান টাইমস ও ইকোনোমিক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মূলধারার গণমাধ্যমে এ ধরনের বিজ্ঞাপনী ক্যাম্পেইন হোয়াটসঅ্যাপের ইতিহাসে এবারই প্রথম হতে যাচ্ছে। এর আগে বিশ্বের কোথাও এমনটি দেখা যায়নি।

হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে ছড়ানো ভুয়া খবরে বিশ্বাস করে সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের বিভিন্ন এলাকায় বড় ধরণের সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনার উল্লেখযোগ্য অংশ ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের টার্গেট করে হয়েছে এবং বেশ কিছু হতাহতের ঘটনাও রয়েছে তাতে।

সহিংসতা উস্কে দেয়ায় ভূমিকা রাখার কারণে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে। এর প্রেক্ষিতেই প্রাথমিকভাবে রেডিওতে বিজ্ঞাপন প্রচার করে মানুষকে সতর্ক করার উদ্যোগ নেয়।

হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ মনে করছে, এক্ষেত্রে টিভি বিজ্ঞাপন কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে।

টিভি বিজ্ঞাপন নিয়ে এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, তারা ভারতে তাদের অ্যাপ ব্যবহারকারীদের নিয়ে বিস্তর গবেষণা চালানোর পর তিনটি বিজ্ঞাপন বানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিজ্ঞাপনগুলোর গল্পে ভারতে ভুয়া খবর ছড়ানোর ভয়াবহ পরিণামের বাস্তব উদাহরণ তুলে ধরা হয়েছে।

৯টি ভাষায় বিজ্ঞাপনগুলো টেলিভিশন, ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচার করা হবে, যাতে সারা ভারতের বিপুল পরিমাণ ব্যবহারকারী ভুয়া খবরের বিষয়ে সচেতন হতে পারেন।

ডিসেম্বের ৭ তারিখে তেলেঙ্গানা ও রাজস্থানের নির্বাচনের আগমুহূর্তে বিজ্ঞাপনগুলোর প্রচার শুরু হবে। তবে আগামী বছর জাতীয় নির্বাচনের আগে ব্যাপকভাবে প্রচার করা হবে।

৬০ সেকেন্ড করে তিনটি বিজ্ঞাপনই ইংরেজি, হিন্দি, বাংলা, কান্নাদা, তেলেগু, অসমীয়, গুজরাটি, মারাঠি ও মালায়লাম ভাষায় বানানো হয়েছে। সিনেমা হল ও টিভি চ্যানেলসহ অন্যান্য মাধ্যমেও এগুলো প্রচার করা হবে।

হোয়াটসঅ্যাপের বিবৃতিতে বলা হয়, পারিবারিক ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গ্রুপগুলোতে স্প্যামের মাধ্যমে ভারতে প্রচুর গুজব ছড়ানো হয়। এই বিজ্ঞাপনগুলো তা প্রতিরোধে কার্যকরী হতে পারে।

এ বছরের শুরুর দিকে দুইবার ভারত সরকার ভুয়া খবর ছড়ানো বন্ধ করতে ব্যবস্থা নিতে হোয়াটসঅ্যাপকে নোটিশ দেয়। সঠিক ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হলে অ্যাপটিকে গুজব ছড়ানোর প্ল্যাটফর্ম হিসেবে গণ্য করে এর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার হুমকি দিয়ে রাখে ভারত সরকার। এরপরই ২০ কোটির বেশি গ্রাহকের দেশটিতে আলাদা করপোরেট অফিস স্থাপনের প্রক্রিয়াও শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি।

Related Post