অ্যানফ্রেল প্রধান সম্পর্কে সজীব ওয়াজেদের দাবি অসত্য

25 December, 2018 02:12 AM ইলেকশন চেক ২০১৮

জাহেদ আরমান:

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলরের মুখপাত্র রবার্ট প্যালাডিনোর এক টুইট বার্তার জবাবে বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, “দ্যা এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ফ্রি ইলেকশন্স (অ্যানফ্রেল) এর প্রধান বাংলাদেশের বিরোধী দলের সাবেক সদস্য। নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের নিরপেক্ষ হওয়া উচিত।” কিন্তু বিডি ফ্যাক্টচেকের অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে, অ্যানফ্রেলের প্রধান কুল পানহা একজন কম্বোডিয়ান নাগরিক।

গত ২১ ডিসেম্বর টুইট করা ওই বার্তায় মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলরের মুখপাত্র এবং ডিরেক্টর অব প্রেস রবার্ট প্যালাডিনো আরও বলেন, “যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আগ্রহী অ্যানফ্রেলের সদস্যদের ভিসা ও পরিচয়পত্র ইস্যু না করায় হতাশ।”

টুইট বার্তায় তিনি একটি লিখিত বিবৃতিও পোস্ট করেন। লিখিত বিবৃতিতে তিনি বলেন, “নির্বাচনটি আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য হচ্ছে কি-না তা পর্যবেক্ষণের জন্যই এই পর্যবেক্ষণ মিশনের উপস্থিতি দরকার ছিল। যুক্তরাষ্ট্র সরকার এনডিআই‘র মাধ্যমে এর তহবিল জোগান দিয়ে থাকে। যথাসময়ে ভিসা ইস্যু না করায় 'অ্যানফ্রেল' তার নির্বাচন পর্যবেক্ষণের মিশন বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে।”

স্ক্রিনশট: মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলরের মুখপাত্র এবং ডিরেক্টর অব প্রেস রবার্ট প্যালাডিনোর টুইট বার্তা।

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, “নির্বাচনে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক দল না যাওয়ার ঘাটতি পুষিয়ে নিতে স্থানীয় এনজিওর সমন্বয়ে গঠিত ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপের সদস্যদের  দ্রুত পরিচয়পত্র ইস্যু করাটা জরুরি। এর মাধ্যমে তারা সঠিকভাবে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে পারবে।”

এই টুইট বার্তারই জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়। সেখানে তিনি অ্যানফ্রেলের প্রধানকে বাংলাদেশের বিরোধী দলের সাবেক সদস্য বলে মন্তব্য করেন। তিনি আরও বলেন, “আশ্চর্যজনক ব্যাপার হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট এবং ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইন্সটিটিউট (এনডিআই) পক্ষপাতদুষ্ট পর্যবেক্ষক বাছাই করেছে।”

তাঁর দাবির সত্যতা যাচাই করার জন্য বিডি ফ্যাক্টচেক অ্যানফ্রেলের ওয়েবসাইটে সংস্থাটির প্রধান সম্পর্কে খোঁজ নেয়ার চেষ্টা করে। এতে দেখা যায়,অ্যানফ্রেলের প্রধান কুল পানহা একজন কম্বোডিয়ান নাগরিক। তিনি কমিটি ফর ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার ইলেকশন্স ইন কম্বোডিয়া (কমফ্রেল) এরও নির্বাহী পরিচালক।

স্ক্রিনশট: অ্যানফ্রেল-এর ওয়েবসাইট থেকে।

বিষয়টি নিয়ে আরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য বিডি ফ্যাক্টচেক যোগাযোগ করে সংস্থাটির সঙ্গে। গত ২৩ ডিসেম্বর এক টুইট বার্তায় সংস্থাটি সজীব ওয়াজেদ জয়ের বক্তব্যকে ভূয়া হিসেবে অভিহিত করে। টুইট বার্তায় সংস্থাটি বলে, “ভুয়া সংবাদ। আমাদের প্রধান একজন কম্বোডিয়ান।”

স্ক্রিনশট: সজীব ওয়াজেদ জয়ের টুইট বার্তার জবাব দেয় অ্যানফ্রেল।

অতএব দেখা যাচ্ছে, অ্যানফ্রেল প্রধান সম্পর্কে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের বক্তব্য অসত্য। 

Related Post