এটি পশ্চিমবঙ্গের স্কুল পাঠ্যক্রমের বই (ছিল), বাংলাদেশের নয়

10 January, 2019 20:01 PM সামাজিক মাধ্যম

ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদক:

 

একটি বইয়ের পাতার ছবিসহ ফেসবুকে একটি বার্তা অনেকেই শেয়ার করছেন। বইয়ের পাতার ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, 'হযরত মহম্মদ' শিরোনামে একটি অধ্যায় শুরু হয়েছে, এবং তার নিচে কাবা শরিফের ছবির পাশে একজন ব্যক্তির ছবিও রয়েছে। অধ্যায়ের শিরোনাম ও ভেতরের বিষয়বস্তুর সাথে মেলালে যে কারো ধারণা হতে পারে ছবির আলোচ্য ব্যক্তিটিই হয়তো 'হযরত মহম্মদ' (যা শুদ্ধ বানানে 'মুহাম্মদ' স.)।

 

বাংলাদেশের সাজামিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ছবিটির সাথে যেসব তথ্য প্রচার করা হচ্ছে তার সারমর্ম হচ্ছে, "ছবিটি বাংলাদেশের স্কুল পাঠ্যক্রমের একটি বইয়ের পাতার। এবং এভাবে নবী মুহাম্মদ স. এর কথিত ছবি স্কুলের বইয়ে ব্যবহার করে কোমলমতি শিশুদেরকে ইসলামের ভুল শিক্ষা দেয়া হচ্ছে এবং নবী স. কে এর মাধ্যমে ব্যঙ্গ করা হয়েছে।"

 

আরও স্পষ্ট ধারণা দেয়ার জন্য একটি পোস্টের প্রথম কয়েকটি লাইন তুলে ধরা হল--

 

"বাংলাদেশের কেজি স্কুলের পড়ানোর জন্য । বইয়ে কাবা শরিফ ও তার পাশে ছবিটি দিয়ে তারা বুঝাতে চায় এটা আমাদের নবী মোহাম্মদ (সাঃ)এর ছবি ! প্রধান অপরাধ →রাসুলের ছবি একে ব্যাঙ্গ করেছে। শিশুদের মাইন্ড চেঞ্জ করার বিরাট একটা ফন্দি করেছে। যখনি তার সামনে মুহাম্মাদ (সাঃ) এর কথা আসবে তখনি তার এই ছবিটি মাইন্ডে অটোমেটিক চলে আসবে।...."

 

স্ক্রিনশটে দেখুন--

 

আরও কয়েকটি পোস্ট দেখুন--

BDfactcheck.com এর অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে, আলোচ্য বইটি বাংলাদেশের কোনো পাঠ্যক্রমভূক্ত বই নয়। গত বছরের জানুয়ারি মাসে এ নিয়ে কলকাতার এবং ঢাকার কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছিল।

 

কলাকাতার সংবাদমাধ্যম টিডিএন বাংলা'য় গত বছরের জানুয়ারি প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল, "মুহাম্মদ (সা:) এর কল্পিত ছবি বইয়ে ছাপিয়ে ক্ষমা চাইলেন আরেক প্রকাশক।"

 

প্রতিবেদনটির প্রথমাংশ পড়ুন নিচের স্ক্রিনশটে--

এছাড়া ঢাকা থেকে প্রকাশিত 'আওয়ার ইসলাম ২৪ ডটকম" নামে একটি পোর্টালে গত বছরের ৯ জানুয়ারি "কলকাতার বইয়ে মুহাম্মদ সা. এর ছবি, মুসলমানদের তীব্র প্রতিবাদ" শিরোনামে প্রতিবেদনে বইটির সংশ্লিষ্ট অধ্যায়ের শুরুর পৃষ্ঠার ছবি প্রকাশ করা হয়, যা বর্তমানে 'বাংলাদেশের বইয়ের ছবি' বলে প্রচারিত হচ্ছে।

 

আওয়ার ইসলামের ওই সময়ের প্রতিবেদন দেখুন স্ক্রিনশটে--

গত বছরের ১২ জানুয়ারি দৈনিক ইনকিলাবে এ নিয়ে প্রতিবদেন ছাপা হয়েছিল। দেখুন ইনকিলাবের প্রতিবেদন: "পশ্চিমবঙ্গে বইয়ে হযরত মুহাম্মদ (সা.)’র ছবি, ক্ষমা প্রার্থনা"

 

সিদ্ধান্ত: 'বাংলাদেশের স্কুল পাঠ্যক্রমের বই' হিসেবে বাংলাদেশের সামাজিক মাধ্যমে নতুন করে প্রচার হওয়া বক্তব্য ও ছবিটি ভুয়া। আলোচ্য বইয়ের নাম, এটির প্রকাশনা সংস্থার নাম, বইয়ের অধ্যায় এবং সেই অধ্যায়ে প্রকাশিত ছবি- সবকিছু মিলিয়ে এটা নিশ্চিত হওয়া গেছে যে, বইটি প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশের নয়। এটি কলকাতার পাঠ্যক্রমের বই হিসেবে ছাাপা হয়েছিল। পরে প্রকাশ ভুল স্বীকার করে বইটি প্রত্যাহার করে নেন।

Related Post