৩ বছর আগের ফেইক নিউজ এখন বাংলাদেশি সংবাদমাধ্যমে!

27 March, 2019 22:03 PM গণমাধ্যম

তিন বছরেরও বেশি সময় আগের একটি ভুয়া খবর বর্তমানে বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি মূল ধারার সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। গত ২৪ মার্চ সময়টিভির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ভুয়া খবরটির শিরোনাম হচ্ছে, "দুই বিয়ে না করলেই যাবজ্জীবন জেল"।

তিন প্যারা সম্বলিত পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন নিচের স্ক্রিনশটে--

গত ২৪ মার্চ (২০১৯) প্রথমবার সময়টিভির ফেসবুক পেইজে প্রতিবেদনটি শেয়ার করা হয়। এরপর গতকাল পর্যন্ত আরও দুইবার একই পেইজে প্রতিবেদনটি পোস্ট করা হয়। দেখুন নিচের স্ক্রিনশটগুলোতে--

এছাড়া ২৪ মার্চ দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন একই ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করে 'অদ্ভুত' আইন, দুই বিয়ে না করলেই যাবজ্জীবন কারাদণ্ড" শিরোনামে। দেখুন স্ক্রিনশটে--

মজার বিষয় হলো, ২০১৬ সালে প্রথম যখন কেনিয়ান একটি স্যাটায়ার ম্যাগাজিনের মাধ্যমে ভুয়া খবরটি ছড়িয়েছিলো তখনও বাংলাদেশ প্রতিদিন এটি প্রকাশ করেছিলো! তখন শিরোনাম ছিল: "দুই বিয়ে না করলে জেল!" দেখুন গুগল সার্চের স্ক্রিনশট নিচে--



তখন (২০১৬) অবশ্য বাংলাদেশি অন্যান্য সংবাদমাধ্যম যেমন-- ইত্তেফাক, চ্যানেল আইন অনলাইন-- ইত্যাদিতে ভুয়া খবরটি প্রকাশিত হয়েছিল। স্ক্রিনশট--


তবে বাংলাট্রিবিউন আর এনটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিলো খবরটি আসলে সত্য নয়, এটি গুজব। স্ক্রিনশটে দেখুন--

ভুয়া খবরটি বিভিন্ন দেশে প্রথম ছড়িয়েছিল ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে। ওই বছর জানুয়ারির ২৮ তারিখ বিবিসি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে যার শিরোনাম ছিলো, "Eritrea 'appalled' by hoax forced polygamy story". অর্থাৎ, "জোরপূর্বক বহুবিবাহ সংক্রান্ত গুজব ছড়ানোর ঘটনায় হতভম্ব ইরিত্রিয়া সরকার"।

বিবিসির ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়, ভুয়া খবরটি ছড়িয়েছে কেনিয়ার একটি স্যাটায়ার ম্যাগাজিনের একটি ব্যঙ্গাত্মক লেখাকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করার মাধ্যমে। Standard নামের ওই পত্রিকায় Crazy Monday নামে একটি কলাম প্রকাশিত হয়। সেখানে ব্যঙ্গ করে এই গল্পটি বলেছিলেন লেখক। তা থেকেই ভুলভাবে ব্যাখ্যা করে এটি ছড়াতে থাকে বিভিন্ন দেশে।

বিশ্বখ্যাত ফ্যাক্টচেকিং ওয়েবসাইট স্নোপসও এটিকে গুজব বলে চিহ্নিত করে।

এ নিয়ে বিবিসি আরও একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে ওই বছরের ৩০ জানুয়ারি, যার শিরোনাম ছিলো: "The polygamy hoax that spread from Iraq to Eritrea"। 

Related Post