টিউলিপ সিদ্দিকীর একাউন্টে ২০০ কোটি ডলারের সন্ধান পাওয়ার ভুয়া খবর

21:12 PM আন্তর্জাতিক

ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন। 
গত কয়েকদিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে একটি সংবাদ ঘুরে বেড়াচ্ছে। বিডিপলিটিকো নামে একটি ভুইফোঁড় অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটির শিরোনাম, "টিউলিপ সিদ্দিকীর একাউন্টে ২০০ কোটি ডলারের সন্ধান পেয়েছে channel 4"।

প্রতিবেদনটিতে দাবি করা হয়েছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ সিদ্দিকীর ব্যক্তিগত একাউন্টে অস্বাভাবিক পরিমাণের লেনদেনের তথ্য পেয়েছে ব্রিটেনভিত্তিক সংবাদমাধ্যম চ্যানেল ফোর।

প্রতিবেদনের শুরুতে বলা হয়েছে, “বাংলাদেশে গুম খুন আর মানবাধিকার নিয়ে বাংলাদেশের বিনা ভোটের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার একমাত্র মেয়ে ব্রিটিশ লেবার পার্টির এমপি টিউলিপ সিদ্দিকের দ্বিমুখী চরিত্র অনেক আগেই ফাঁস করেছে বিলাতের প্রেস্টিজিয়াস টিভি চ্যানেল ফোর। একজন ইরানিয়ান বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক যিনি ইরানে গিয়ে কারাবন্ধী হয়েছেন, তার মুক্তির দাবিতে ২৫ নভেম্বর লন্ডনে এক প্রতিবাদ সভায় প্রধান ব্যাক্তি ছিলেন টিউলিপ সিদ্দিক এমপি। সেখানে চ্যানেল ফোরের সাংবাদিক বাংলাদেশে গুম খুনের প্রসঙ্গ তুলতেই ফ্যাকাশে হয়ে যায় টিউলিপের চেহারা। সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে পলায়নরত টিউলিপ জবাব দেয় ‘আই এম নট বাংলাদেশী’। এমনকি সাংবাদিক ডেইজিকে হুমকি দেয় টিউলিপ।”


প্রতিবেদনটির স্ক্রিনশট--

পরের প্যারায় লেখা হয়েছে “এরপর থেকে চ্যানেল ফোরের সংবাদিকেরা টিউলিপ সিদ্দিক সম্পর্কে খোঁজ খবর নিতে শুরু করে। তথ্য নিতে গিয়ে কেচো খুঁড়তে গিয়ে রীতিমত সাপ খঁজে পেয়েছেন তারা। তার ব্যাংক একাউন্ট নিয়ে তত্ত্বতালাশ করতে গিয়েতো অবাক বিস্মিত। চ্যানেল ফোরের টিম ইতিমধ্যেই জানতে পেরেছেন টিউলিপের একাধিক ব্যাংক একাউন্ট রয়েছে। শুধু একটি একাউন্টেই ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমান অর্থ। চ্যানেল ফোরের টিম খোঁজ করতে থাকে টিউলিপ সিদ্দিক এত বিপুল পরিমান অর্থ কিভাবে অর্জন করেছেন। ব্রিটিশ এমপি হয়ে এত টাকার মালিক হাওয়ার কথা নয়। গভীর অনুসন্ধানে সাংবাদিক টিম নিশ্চিত হয়েছেন যে, এই অর্থের চালান এসেছে যুক্তরাজ্যের বাইরে থেকে। যে পাঠিয়েছে তার নাম WAZED, SAJEEB AHMED। শেখ হাসিনার পুত্র জয় বাংলাদেশ লুট করা অর্থে তার খালার হিস্যা হিসাবে আমেরিকা থেকে পাঠিয়েছে। সূত্রটি জানিয়েছে, খুব শিগগিরই channel 4 তাদের এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রচার করবে। ইতোমধ্যে খবর ফাঁস হয়ে গেছে টিউলিপ সিদ্দিক ২০০ কোটি ডলারের মালিক। এ খবর এখন ব্রিটিশদের মুখে মুখে। সমালোচনার ঝড় বইছে।”

সবশেষে বলা হয়েছে, “এদিকে টিউলিপ ও তার মা শেখ রেহানা যে বাংলাদেশে তার খালা শেখ হাসিনার অবৈধ সরকারের গুম খুনের পক্ষে সমর্থন যোগাচ্ছে, তার কিছু প্রামান্য ডকুমেন্টস চ্যানেল ফোর এর হাতে এসেছে। যা নিয়ে প্রতিবেদন তৈরী করে প্রচার করেছেন তারা। বাংলাদেশের গুম খুনের সাথে টিউলিপের যুক্ত থাকা বৃটিশ রাজনীতিকদের মূল্যবোধের পরিপন্থি। এ নিয়ে চ্যানেল ফোরের বিশেষ প্রতিবেদনের পরে টিউলিপের এমপি পদ রক্ষার চেষ্টায় চাপ কমাতে হাসিনা গুম হওয়া আলোচিত কয়েকজনকে ছেড়ে দিয়েছে। তবে ২ বিলিয়ন ডলার দুর্নীতির অর্থের খোঁজ পাওয়ার পরে এবার টিউলিপের রক্ষা পাবার সম্ভাবনা ক্ষীণ।”

বিডিফ্যাক্টচেক-এর পক্ষ থেকে ইন্টারনেটে অনুসন্ধানের মাধ্যমে এর সত্যমিথ্যা যাচাই করে করে দেখা হয়েছে। উল্লিখিত প্রতিবেদনে  চ্যানেল ফোর’কে একমাত্র সূত্র হিসেবে দাবি করা হয়েছে। কিন্তু ইন্টারনেট ঘেঁটে চ্যানেল ফোরের ওয়েবসাইটে বা সংবাদমাধ্যমটির বরাতে অন্য কোনো সংবাদমাধ্যমে টিউলিপ সিদ্দিকীর একাউন্টে ২ বিলিয়ন ডলার লেনদেনের কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

বিডিপলিটিকো নামক ওয়েবসাইটটির উল্লিখিত প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, চ্যানেল ফোর এখনো এসব তথ্য প্রকাশ করেনি, শিগগিরই প্রকাশ করবে! প্রশ্ন হচ্ছে, ওরা প্রকাশ না করলে বিডিপলিটিকো কোথা থেকে জানতে পারলো? ইতোমধ্যে বিতর্কের কেন্দ্রে থাকা একজন রাজনীতিবিদ সম্পর্কে এত বড় ‘কেলেঙ্কারির’ তথ্য পেয়েও নিজেরা তা প্রকাশ করার আগে বাংলাদেশের এক ভুইফোঁড় বাংলা অনলাইন পোর্টালকে দিয়ে দিলো চ্যানেল ফোর?!!

আরেকটি বিষয় হল, দাবি করা হয়েছে ‘এ খবর এখন ব্রিটিশদের মুখে মুখে। সমালোচনার ঝড় বইছে।’ অথচ ব্রিটেনের কোনো সংবাদমাধ্যমেই তা আসেনি!

সর্বোপরি, অনলাইনে যাচাই বাছাই এবং রিপোর্ট লেখার ভাষাগত বালখিল্যতা থেকে নিশ্চিত হওয়া যায়, এটি পুরোপুরি ভুয়া একটি খবর।

Related Post