ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী কি তারেক রহমানকে দেশে ফেরৎ পাঠাবেন না বলেছেন?

03:03 AM বিএনপি

ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নেতারা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের কিছু অনলাইন সংবাদপত্র ডেইলি মেইলকে উদ্ধৃত করে বলেছে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে তারেক রহমানকে দেশে ফেরৎ পাঠাবেন না বলে মন্তব্য করেছেন। কিন্তু বিডি ফ্যাক্টচেক-এর অনুসন্ধানে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর এই ধরণের মন্তব্যের কোনো সত্যতা মিলেনি।

তারেককে ফেরত পাঠাতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি” শিরোনামে প্রকাশিত কালের কন্ঠের প্রতিবেদনে বলা হয়, “বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর দাবি জানিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র কাছে চিঠি দিয়েছে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার লন্ডনের স্থানীয় সময় বেলা ২টার দিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়‘১০ নং ডাউনিং স্ট্রিট’-এর এক কর্মকর্তার হাতে চিঠি পৌঁছে দেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।“

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের নেতৃত্বে দেয়া এ চিঠিতে তারেক রহমানকে পলাতক আসামি উল্লেখ করে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়।

চিঠি জমা দেয়ার সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বাংলাদেশের কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্য থেকে ফেরত পাঠানো হবে না এবং তিনি বাংলাদেশে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার উল্লেখ করে কয়েকটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

ডিএনএন ডট নিউজ “তারেক রহমান প্রতিহিংসার শিকার, ফেরত পাঠানোর প্রশ্নই আসেনা: টেরেসা মে” শিরোনামের সংবাদে বলা হয়, “বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার উল্লেখ করে তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে। তিনি বলেন: যুক্তরাজ্য থেকে তারেক রহমানকে বাংলাদেশ কিংবা আন্তর্জাতিক কোন সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার প্রশ্নই উঠে না। শুধু তারেক রহমান কেন, মানবাধিকারের প্রশ্নে নিপীড়িত কোন ব্যক্তিকেই যুক্তরাজ্য এভাবে অনিরাপদ করে কারও হাতে তুলে দেয় না।” আমিবাংলাদেশটোয়েন্টিফোর ডটকম “এবার তারেক রহমানকে নিয়ে যা বললেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে” শিরোনামে প্রায় একই সংবাদ প্রকাশ করে।

সবুজ বাংলা নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল গত ১১ মার্চ দাবি করে “এবার বিএনপি'র পক্ষে শক্ত অবস্থান নিল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ! ফিরিয়ে দিলো আওয়ামী লীগকে !!”।

ইউটিউব চ্যানেল নিউজ টিভি ১১ মার্চ এবং জেকে টিভি ১০ মার্চ ওই একই বক্তব্য ধারণ করে যথাক্রমে সংবাদ শিরোনাম করে “আওয়ামীলীগকে হতাশ করে যুক্তরাজ্য তারেক রহমানকে নিয়ে একি সিদ্বান্ত নিলো!!” এবং “এবার তারেক রহমানকে নিয়ে যা বললেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে।”

এই সব নিউজের তথ্যসূত্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে যুক্তরাজ্যেরই সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইলকে। কিন্তু বিডি ফ্যাক্টচেক-এর অনুসন্ধানে ডেইলি মেইলে এ সংক্রান্ত কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি। এমনকি গুগলে এ সংক্রান্ত বিভিন্ন কী ওয়ার্ড দিয়ে অনুসন্ধান করেও এই সংবাদের কিছু খুঁজে পাওয়া যায়নি।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা বিএনপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর দাবি করে চিঠি দিলেও ওই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির সরকার কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি। তাঁকে দেশে পাঠানো হবে কি হবে না; তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন নাকি হননি; সে সম্পর্কে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে কোনো সংবাদ মাধ্যমে কিছু বলেননি।

 

Related Post