ভুয়া ‘আমার দেশ’-এ ভুয়া সংবাদ, মামলা মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে!

14:05 PM গণমাধ্যম

বিডিফ্যাক্টচেক প্রতিবেদক:

বাংলাট্রিবিউন একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে, ‘আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদকের বিরুদ্ধে ১শ’ কোটি টাকার মানহানি মামলা’

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, “দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার অনলাইন সংস্করণের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে ১শ’ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট মাসুদুর রহমান শরীয়তপুর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়।”

আরও বলা হয়েছে--

“মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৩ মে আমার দেশ পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে ‘পালিত কন্যা নিপাকে বিয়ে করলেন এরশাদ!’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়, যা সম্পূর্ণরূপে মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। প্রকৃতপক্ষে এরশাদ তার পালিত কন্যার বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন। সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য মিথ্যা সংবাদটি প্রকাশ করা হয়েছে।”


দৈনিক জনকণ্ঠে এ নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনটি দেখুন

এদিকে এনটিভি অনলাইনে গতকাল বুধবার অন্য একটি সংবাদের শিরোনাম ছিল, ‍‘মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে জাপা নেতার মামলা’। এটি শেরপুরের নালিতাবাড়িতে দায়ের করা হয়েছে। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে--

“জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মানহানির অভিযোগে ‘দৈনিক আমার দেশ’-এর সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে শেরপুর সিআর আদালতে মামলা হয়েছে। মামলাটি করেছেন জাতীয় পার্টি নালিতাবাড়ী উপজেলা শাখার সম্পাদক সোহেল রানা মিঠু। আজ বুধবার দণ্ডবিধি ৫০০ ধারায় সিআর আমলি আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়।

নালিতাবাড়ী সিআর আমলি আদালতের বিচারক জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম হুমায়ুন কবীর তালুকদার মামলাটি গ্রহণ করেছেন। তিনি মামলাটি জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) মারফত তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার বাদী সোহেল রানা মিঠু জানান, এইচ এম এরশাদ তাঁর পালিত কন্যা নিপা রানি কর্মকারের বিয়ে দেন। তিনি নিজে উপস্থিত থেকে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে গত ১৩ মে নিপার বিয়ে দেন। এ বিয়ের খবর বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়। কিন্তু দৈনিক আমার দেশ অনলাইন পত্রিকা ‘পালিত কন্যা নিপাকে বিয়ে করলেন এরশাদ’ এমন শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। এর ফলে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদসহ জাতীয় পার্টির সব নেতাকর্মীর মানহানি ঘটায় এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।”


দৈনিক যুগান্তরে এ নিয়ে প্রতিবেদন দেখুন


দুটি মামলা
একই ‘সংবাদ’ (‘পালিত কন্যা নিপাকে বিয়ে করলেন এরশাদ’) প্রকাশের কারণে দায়ের করা হয়েছে। আলোচ্য সংবাদটিতে (গুগল ক্যাশে লিংক) কী বলা হয়েছে দেখুন নিচের স্ক্রিনশটে--

‌মামলায় এবং বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে যে ‘দৈনিক আমার দেশ’ এর অনলাইন সংস্করণের এই সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার দাবি করা হয়েছে সেটির ওয়েবসাইট হচ্ছে- www.amardesh.online .

দেখুন স্ক্রিনশটে--

কিন্তু দৈনিক আমার দেশ এর ওয়েবসাইটের ঠিকানা এটি নয়। ২০১৩ সাল থেকে বন্ধ থাকা পত্রিকাটির ওয়েবসাইটের ঠিকানা হচ্ছে- www.amardeshonline.com

আমার দেশ এর বার্তা সম্পাদক জাহেদুর রহমান bdfactcheck.com -কে জানিয়েছেন তাদের পত্রিকার অনলাইন ভার্সন প্রায় দুই বছর ধরে বন্ধ আছে। ২০১৬ সালে বিটিআরসি যখন একসাথে ৩৫টি অনলাইন পোর্টাল বন্ধ করে দেয় সেগুলোর মধ্যে আমার দেশ এর ওয়েবসাইট www.amardeshonline.com-ও ছিল। এরপর থেকে ডোমেইনটি আর রিনিউ করা হয়নি বলেও জাহেদুর রহমান।

‘অন্য কোনো ওয়েব ঠিকানা ব্যবহার করে আমার দেশ পত্রিকার অনলাইন ভার্সন চলছে কিনা’- এমন প্রশ্নের জবাবে জনাব জাহেদ বলেন, ‘অন্য কোনো ঠিকানায় পত্রিকা চলার প্রশ্নই আসে না। তবে গত দুইদিনে কয়েকজনের ফোন পেয়েছি। তারা জানিয়েছেন আমার দেশ- ওয়েব এড্রেস ও লোগোর কাছাকাছি এড্রেস ও লোগো ব্যবহার করে কে বা কারা ওয়েবসাইট চালাচ্ছেন, এমন মনগড়া খবর ছাপাচ্ছেন। ওগুলো দমন করা আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে।’

২০১৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন, পত্রিকাটির অনলাইন সরকার কর্তৃক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এনটিভি অনলাইনের নিচের সংবাদটি দ্রষ্টব্য--


bdfactcheck.com এর অনুসন্ধানে দেখা গেছে, আমার দেশ এর নাম ব্যবহার করে অন্তত তিনটি ওয়েবসাইট চালানো হচ্ছে। এর একটিতে আমার দেশ পত্রিকার লোগোকে একটু বদলে ব্যবহার করা হচ্ছে।

নিচের ছবিটিতে আমার দেশ পত্রিকার মূল লোগো ও amar-desh24.com নামের একটি নিউজ পোর্টালের লোগো মিলিয়ে দেখুন--


একই ছবিতে আমার দেশের লোগোর নিচে পত্রিকাটির ওয়েবসাইট হিসেবে www.amardeshonline.com এই ঠিকানাটি দেয়া আছে (যেটি এখন বিটিআরসি কর্তৃক বন্ধ)। এই পোর্টালটি অস্ট্রেলিয়া থেকে পরিচালিত হয় বলে ওয়েবসাইটের নিচে উল্লেখ করা হয়েছে (ঠিকানা: 43A Railway Pde Lakemba, NSW 2195, Australia)।

এছাড়া www.amardesh.com নামে আরেকটি ওয়েবসাইট আছে, যেটিতে বাংলাদেশের বিভিন্ন পত্রিকার লিংক জড়ো করে রাখা হয়েছে। এটি কোথায় থেকে চালানো হয় তার কোনো উল্লেখ নেই।

www.amardesh.online নামের যে ওয়েবসাইটটিতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে নিয়ে যে বিতর্কিত ‘খবর’টি প্রকাশ করা হয়েছে সেটি বাংলাদেশ থেকে প্রবেশযোগ্য নয়; একাধিক প্রক্সি সার্ভারের মাধ্যমেও ওয়েবসাইটটিতে ঢুকা যায়নি। তবে ফেসবুকে বিভিন্নজনের শেয়ার করা পোস্টে সংবাদটি দেখা গেছে--

লক্ষ্যণীয় বিষয় হচ্ছে, বাংলাট্রিবিউন, জনকণ্ঠ, যুগান্তর, এনটিভি অনলাইন- এসব সংবাদমাধ্যমের কোনোটিই মামলার ঘটনায় সংবাদ পরিবেশনের আগে যাদের বিরুদ্ধে (আমার দেশ কর্তৃপক্ষ) ভুয়া সংবাদ পরিবেশনের অভিযোগ করা হয়েছে তাদের কারো সাথে কথা বলেনি। এ কারণেই আমার দেশ এর অনলাইন নয়- এমন একটি ওয়েবসাইটের ভুয়া খবরকে ‘আমার দেশ এর অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত প্রতিবেদন’ হিসেবে উল্লেখ করার মতো বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ‘পালিত কন্যা নিপাকে বিয়ে করলেন এরশাদ’ শিরোনামে খবরটি সম্পূর্ণ বিকৃত। প্রকত সংবাদটি ‘পিতা হিসেবে মেয়েটির বিয়ে দিলেন এরশাদ’ শিরোনামে বাংলাদেশ প্রতিদিন, কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে গত ১৩ মে প্রকাশিত হয়েছে। 

Related Post