সৌদি যুবরাজ কী মসজিদ ভেঙে সিনেমা হল বানাচ্ছেন?

10:06 AM গণমাধ্যম

ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদক:

শনিবার দৈনিক যুগান্তরের অনলাইনে একটি প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিল, ‘মসজিদকে সিনেমা হল বানাচ্ছে সৌদি যুবরাজ: আল কায়েদা’

যুগান্তরের ইন্ট্রোতে বলা হয়েছে, “সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমানের সংস্কার কর্মসূচিকে পাপাচার প্রকল্প আখ্যা দিয়ে হুশিয়ারি বার্তা দিয়েছে আল কায়েদা। আরব উপদ্বীপে ইয়েমেন ভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, প্রিন্স মোহাম্মদের নতুন যুগে মসজিদকে সিনেমা হল বানানো হচ্ছে।”

ব্রিটেনের দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকার বরাতে ‘মসজিদকে সিনেমা হল বানানো’র খবরটি যুগান্তরে প্রকাশের সাথে সাথে অন্যান্য কিছু অনলাইন পোর্টালেও এ নিয়ে প্রতিবেদন হয়। এর মধ্যে বাংলাদেশ জার্নাল নামে একটি পোর্টালের শিরোনাম, ‘মসজিদ ভেঙে সিনেমা হল বানাচ্ছেন সৌদি যুবরাজ!’

এরপর কালের কণ্ঠ, এনটিভি অনলাইনসহ অন্যান্য পোর্টালে আসে খবরটি।

bdfactcheck.com এর অনুসন্ধানে দেখা গেছে, যুগান্তরের প্রতিবেদনের শিরোনাম এবং ইন্ট্রোতে উল্লেখ করা তথ্য তাদের মূল সূত্র দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট এর প্রতিবেদনের তথ্যের সাথে মিলছে না। বলা ভালো, অনুবাদের ক্ষেত্রে যুগান্তরের শব্দচয়নের অসতর্কতার কারণে অর্থ অনেকটা বদলে গেছে।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট এর প্রতিবেদনের শিরোনাম ছিলো- Al-Qaeda warns Saudi crown prince his cinemas and WWE events are 'sinful'

প্রথম তিনটি প্যারায় ব্রিটিশ পত্রিকাটি লিখেছে--

Extremist group al-Qaeda has sent a warning to Saudi Arabia’s crown prince that his efforts to liberalise the conservative kingdom are “sinful projects”.

“The new era of [Mohammad bin Salman] replaced mosques with movie theatres,” the Yemen-based al-Qaeda in the Arabian Peninsula (AQAP) said in a statement.

The group went on to condemn the prince for the Western “absurdities” which have “opened the door wide for corruption and moral degradation”.

এখানে দ্বিতীয় প্যারাটিতে কোনোভাবেও এটা বুঝানো হয়নি যে, ‘মসজিদকে (ভেঙে) সিনেমা হল বানানো হচ্ছে’। বরং এর বঙ্গানুবাদ করলে দাঁড়াবে- ‘মোহাম্মদ বিন সালমানের নতুন যুগে সিনেমা হল এসে মসজিদের জায়গা দখল করেছে’, বা ‘মোহাম্মদ বিন সালমানের নতুন যুগটি মসজিদের (যুগের) বদলে সিনেমা হলের যুগে পরিণত হয়েছে’।

প্রথমত লক্ষ্যণীয় হল- ইন্ডিপেন্ডন্ট, এএফপি ইত্যাদি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টে আল-কায়দার যেসব বক্তব্য এসেছে তাতে কোথাও মোহাম্মদ বিন সালমানকে সরাসরি দায়ী করে বলা হয়নি যে, ‘মসজিদকে সিনেমা হল বানাচ্ছে সৌদি যুবরাজ’, যেমনটি যুগান্তরের রিপোর্টে বলা হয়েছে। ‌‘মোহাম্মদ বিন সালমানের নতুন যুগটি মসজিদের (যুগের) বদলে সিনেমা হলের যুগে পরিণত হয়েছে’- এই বক্তব্যটি ‘প্যাসিভ ভয়েসে’ (এক্টিভ ভয়েসে নয়)। এটি একটি বিকৃতি।

দ্বিতীয়ত- কোনো আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়নি ‘মসজিদ ভবন ভেঙে বা মসজিদের জায়গা দখল করে সিনেমা হলের অবকাঠামো বানানো হচ্ছে’। যা বলা হয়েছে তার মূলভাব হলো- সৌদি আরবে বিন সালমানের যুগে মসজিদের চেয়েও সিনেমা হলকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। যুগান্তরের রিপোর্টে এটি দ্বিতীয় বিকৃতি।

যুগান্তর তাদের রিপোর্টে ‘মসজিদ ভেঙে’ শব্দগুলো ব্যবহার না করলেও অন্য কেউ কেউ ‘ভেঙে’ শব্দটি যুক্ত করে আরও পোক্ত করেছে ব্যাপারটিকে! যেমন এই শিরোনামটি- ‘মসজিদ ভেঙে সিনেমা হল বানাচ্ছেন সৌদি যুবরাজ!’


তবে ‘সিনেমা হল পাপের প্রকল্প’, সৌদি যুবরাজকে আল-কায়েদার নিন্দা’ শিরোনামে এনটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে অবশ্য অনুবাদটি সঠিকভাবেই এসেছে। দেখুন নিচের স্ক্রিনশটে--

Related Post