জাকির নায়েককে নিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ভুয়া খবর

18:07 PM গণমাধ্যম

ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদক:

ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ‘জাকির নায়েককে আজ রাতে ভারতে হস্তান্তর করা হতে পারে’ এমন খবরটি ভুয়া। মালয়েশিয়া এবং ভারত উভয় দেশের সরকারি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তারা এ বিষয়ে কিছু জানে না।

বুধবার বিকালে মালয়েশিয়ান পত্রিকা দ্য স্টার’কে দেশটির পুলিশপ্রধান তান শ্রী মোহাম্মদ ফুজি হারুন বলেন, ‘আজ রাতে জাকির নায়েককে ভারতে পাঠানোর প্রস্তুতির খবরটি সত্য না।’

আজ না হলেও অতি সম্প্রতি জাকির নায়েককে ভারতে পাঠানোর কোনো প্রক্রিয়া চলমান আছে কিনা এ বিষয়ে অবশ্য কিছু জানাননি এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্রও টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছে, তারাও এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণলায় ও ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএ এর পক্ষ থেকেও জানানো হয়েছে তারা এ ব্যাপারে কিছু জানে না। সূত্র: দ্য হিন্দু পত্রিকা

এর আগে বুধবার দুপুরে এনডিটিভি ও 'টাইমস নাও'সহ ভারতীয় কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, আজ বুধবার রাতের কোনো এক ফ্লাইটে ভারতে পাঠানো হতে পারে ইসলামী বক্তা ও টিভি উপস্থাপক ডা. জাকির নায়েককে। মালয়েশিয়া সরকারের নামহীন একটি সূত্রের বরাতে এনডিটিভি এ খবর প্রকাশ করে। টাইমস অব ইন্ডিয়া, ইকোনোমিক টাইমস ইত্যাদি সংবাদমাধ্যমও এ বিষয়ে প্রতিবেদন করেছিল।

পরে অবশ্য এসব সংবাদমাধ্যম জাকিরের বক্তব্য উদ্ধৃত করে জানায়, তিনি খবরটিকে ভুয়া বলে দাবি করেছেন।

তাৎক্ষিণকভাবে জাকির নায়েক জানিয়েছিলেন, খবরটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। তিনি বলেন, ‘সঠিক বিচার পাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত না হয়ে ভারতে ফেরার কোনোই পরিকল্পনা আমার নেই। যখন মনে হবে সরকার আমার প্রতি নিরপেক্ষ আচরণ করবে তখন নিশ্চয়ই আমার মাতৃভূমিতে ফিরে যাবো।’

এনডিটিভি প্রথমে খবরটি প্রকাশের পর ভারতীয় দুয়েকটি সংবাদমাধ্যমও এর সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে। জনতা কা রিপোর্টার নামে একটি পত্রিকা শিরোনাম করে ‘Confusion over reports of Zakir Naik’s ‘deportation’ from Malaysia, Islamic preacher issues denial’

ভারত সরকার জনাব জাকিরের বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসে মদদ দেয়া’ ও মানিলন্ডারিংয়ের অভিযোগ এনে মামলা করেছে। তার মালিকানাধীন পিস ফাউন্ডেশন ও পিস টিভি বন্ধ করে দিয়েছে। এরপর তিনি মালয়েশিয়ায় আশ্রয় নিলে সেখানে তাকে স্থায়ী বসবাসের অনুমতি দেয় সে দেশের সরকার। ভারত সরকার তাকে মালয়েশিয়া থেকে ফেরত আনার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করছে।

Related Post